1. admin@topnewsbd.net : admin :
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৪:৩৪ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
নারায়ণগঞ্জ বাসীকে ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানালেন সানোয়ার হোসেন জুয়েল। নারায়াণগঞ্জের সর্বস্তরের জনগণকে ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানালেন আলহাজ্ব আজমত আলী দৈনিক আলোর জগত পত্রিকার নারায়ণগঞ্জ ব্যুরো অফিস উদ্বোধন নারায়ণগঞ্জে জুট ব্যবসায়ীর ৭ লক্ষ টাকা নিয়ে পলাতক বরিশালের আলাউদ্দিন নারায়ণগঞ্জে স্বাস্থ্য বিভাগে ২৩৫ টাকা ব্যয়ে চাকরি পেলেন ৮৪ জন কালিহাতি উত্তর বেতডোবা ফাতেমা হালিম উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিবাভক নির্বাচন সম্পন্ন প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অমান্য করে এমপি পুত্র প্রার্থী হওয়ায় ক্ষুব্ধ সেলিম প্রধান। বাংলাদেশ পরিবেশ পরিক্রমা মানবাধিকার সাংবাদিক সোসাইটির উদ্যোগে প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত আলহাজ্ব আজমত আলীর পক্ষে ফতুল্লা বাসীকে ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানালেন মোঃ জসিম। ঢাকা ১০ ও ২ আসনের সর্ব স্তরের জনগণকে ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানালেন হাজি মোঃ শাহ্‌জাহান

ডিসি-এসপির বিরুদ্ধে সংসদে ‘নালিশ’ করবেন সাংসদ এ কে এম শামীম ওসমান

Top News BD Desk :
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২৭ জানুয়ারি, ২০২৪
  • ১৭২ বার পঠিত

মাদক, সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজি বন্ধে করণীয় ঠিক করতে সামাজিক সংগঠন প্রত্যাশা আয়োজিত নারায়ণগঞ্জের এক সভায় সাংসদ এ কে এম শামীম ওসমানের আমন্ত্রণে সাড়া দেননি স্থানীয় জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার। এতে ব্যাপক ক্ষুব্ধ হয়েছেন তিনি। রাজনৈতিক জীবনের ৪৫ বছরে কখনো এত বিব্রত হননি বলে মন্তব্য করেন এ নেতা।

তিনি পুলিশ ও প্রশাসনের কর্মকর্তাদের ‘সাবধান’ করে বলেছেন, ‘রাত বারোটার সময়ও সাড়ে চার, পাঁচ লাখ লোক নামানোর ক্ষমতা শামীম ওসমান রাখে। তা আমরা দেখিয়েছি কয়েকদিন আগে। (লোকজন রাস্তায়) নামার পর যদি আমরা বলি, জনগণ যদি বলে, আমরা কাউকে এখানে চাই না, তাহলে কিন্তু এইখানে থাকার কারও উপায় নাই। এই কথাও মাথায় রাখবেন কিন্তু। আগের মেজাজ থাকলে এখনই বলে দিতাম। এখন বয়স হয়েছে ৬২, তাই ৬২ হিসেবে বক্তব্য দিলাম, ২৬ বানাইয়া দিয়েন না কিন্তু। সাবধান থাকবেন সবাই।’

শনিবার (২৭ জানুয়ারি) বিকেলে নগরীর ইসদাইর এলাকায় ওসমানী পৌর স্টেডিয়ামে আয়োজিত সমাবেশে তিনি এই কথা বলেন। শামীম ওসমানের ডাকা এই সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন তিনি।

এই সময় তিনি বলেন, ‘আমার রাজনৈতিক জীবন প্রায় ৪৫ বছর হতে চললো। আমি কখনও এমন বিব্রতবোধ কখনও করি নাই। বিশেষ করে সাংবাদিক সমাজ, আইনজীবী, আওয়ামী লীগের সবাই মিলে আমার কাছে একটি প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছেন। আমি প্রশাসনের কর্মকর্তাদের এই বিষয়টা (সমাবেশের ব্যাপারে) জানিয়েছি বহু আগেই। আমি আমার ছোটবোন মেয়রের মতো করে বলতে পারবো না যে, এখানে প্রশাসন টাকা কামাতে আসে। আমি এইভাবে কথাটা বলতে চাই না।

‘কিন্তু আপনারা প্রশ্ন করেছেন, আমি জেলা প্রশাসককে বলেছি কিনা, আমি একবার বলি নাই, বারবার বলেছি। আপনারা জেনে অবাক হবেন, কেবিনেট সেক্রেটারি, প্রধানমন্ত্রীর সচিব, খোদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ অন্য মন্ত্রীগণ আমাকে এই উদ্যোগের জন্য সাধুবাদ জানিয়েছেন। সেই কারণে, ওয়ারেন্ট অব প্রেসিডেন্সিতে একটা সংসদ সদস্য কোন জায়গায় থাকে এইটা হয়তো নারায়ণগঞ্জের প্রশাসনের অনেকেই বুঝতে পারেন নাই’, যোগ করেন তিনি।

শামীম ওসমান বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জে যারা আছেন, তাদের সবাইকে মনে রাখতে হবে, আমার নাম শামীম ওসমান। আমি কারও দয়ায় চলি না কিন্তু। আমি কারও দয়া-দাক্ষিণ্যে চলার মতো লোক না। আমি রাজপথ থেকে সৃষ্টি হওয়া মানুষ আমি রাজপথেই শেষ হবো।’

সমাবেশে উপস্থিত না থাকার ব্যাপারটি সংসদে উপস্থাপন করে প্রধানমন্ত্রীর কাছে এই বিষয়ে জানতে চাইবেন বলে জানান এই সংসদ সদস্য। একই প্রশ্ন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও জনপ্রশাসন মন্ত্রীর কাছে রাখবেন বলেও জানান তিনি।

তিনি বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের প্রশাসনে যারা একজনকেও এইখানে আসতে দেন নাই বা আসেন নাই কেন, এই প্রশ্ন যদি এইখানে করি তাহলে ভাববেন নারায়ণগঞ্জে করেছি। আমি শামীম ওসমান সম্বন্ধে ধারণা আপনাদের অনেক কম। পার্লামেন্টের অধিবেশনে জনগণের প্রতিনিধি হিসেবে সংসদে প্রধানমন্ত্রীর কাছে জিজ্ঞেস করবো, যারা জনগণের সেবক হিসেবে, জনগণের চাকরি করে এই নারায়ণগঞ্জে এসেছেন, তারা আজকে অনুপস্থিত কেন?’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি মাথা নোয়াবার মানুষ আমি না। এমন কোন কাজ করি না যে, আল্লাহ ছাড়া কাউকে ভয় করবো। অনেকেই অনেক কিছু করেন, আমরা সব দেখি। টাকা ধরা পড়ে যাত্রাবাড়িতে আর কেস দেখান ফতুল্লাতে। আমাদের কাছে অনেক খবরই আছে, সাংবাদিকরা আমাদের জানান কিন্তু।’

‘এই কথাগুলো আজকে বলার কথা না। আমার চেয়ারম্যান-মেম্বার-কাউন্সিলর সবাই হতাশ হয়ে গেছেন। হতাশ হবেন না, এইটা আমাদের নারায়ণগঞ্জ, আমরাই ঠিক করবো। আমাদের সরকারপ্রধান জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনা। উনিও যেমন পৃথিবীর কোন শক্তির কাছে মাথানত করেন না, আমরাও তার কর্মী কোন শক্তির কাছে মাথানত করার লোক না। আমাদের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের কারণে নারায়ণগঞ্জে অনেকেই সুযোগ নিয়ে চলে যাচ্ছে।’

মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, ভূমিদস্যুতা নির্মূলে জনপ্রতিনিধি ও বিভিন্ন পেশাজীবীদের নিয়ে দ্রুত গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করার জন্য নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবকে অনুরোধ জানান তিনি।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই।

সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান চন্দন শীল, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদল, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা, জেলা কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সভাপতি প্রবীর কুমার সাহা, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড. হাসান ফেরদৌস জুয়েল, নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাব সভাপতি আরিফ আলম দিপু, নারায়ণগঞ্জ জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুস সালামসহ বিভিন্ন পেশাজীবী ও রাজনৈতিক নেতা উপস্থিত ছিলেন।

মানুষের প্রত্যাশা পুরণে একটি অরাজনৈতিক সংগঠনের উদ্যাগে,মাদক,সন্ত্রাস,চাঁদাবাজি, ইভটিজিং ও ভুমিদসুতা মুক্ত সমাজ গড়া। মেডিক্যাল ক্যাম্প করে দুস্থ অসহায় মানুষকে চিকিৎসা প্রদান করা।গরিব ছাত্র ছাত্রীদের লেখাপড়ায় সাহায্যে প্রদান করা,মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘসনা করা

Facebook Comments Box
এই ক্যাটাগরির আরও খবর

ফেসবুকে আমরা