1. admin@topnewsbd.net : admin :
রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ০১:৫২ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ফেনীতে দু’কোটি টাকার ভারতীয় শাড়ি আটক পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে নারী পাচার: তিন চাকমা, সদস্য গ্রেফতার নড়াইলে বজ্রপাতে একসঙ্গে ৩ জনের মৃত্যু সারাদেশের পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্ম বিরতি । ঈদুল আযহা উপলক্ষে কোরবানির মাংস বিতরন করলেন হাজি মোঃ শাহজাহান নারায়ণগঞ্জ বাসীকে ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানালেন সানোয়ার হোসেন জুয়েল। নারায়াণগঞ্জের সর্বস্তরের জনগণকে ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানালেন আলহাজ্ব আজমত আলী দৈনিক আলোর জগত পত্রিকার নারায়ণগঞ্জ ব্যুরো অফিস উদ্বোধন নারায়ণগঞ্জে জুট ব্যবসায়ীর ৭ লক্ষ টাকা নিয়ে পলাতক বরিশালের আলাউদ্দিন নারায়ণগঞ্জে স্বাস্থ্য বিভাগে ২৩৫ টাকা ব্যয়ে চাকরি পেলেন ৮৪ জন

দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রনে সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রন করুন : বাংলাদেশ ন্যাপ

Top News BD Desk :
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ৬ নভেম্বর, ২০২৩
  • ৩৫৫ বার পঠিত

সিন্ডিকেট করে যে সকল দুর্বৃত্তরা নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য সাধারন মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে নিয়ে গেছে তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহন করে সরকারকে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্র্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ এই সংকট কাটিয়ে উঠতে তারা সরকারের দ্রুত পূর্ণ রেশনিং ব্যবস্থা চালু করার দাবি জানিয়েছে।

রবিবার (৫ নভেম্বর) গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে পার্টির চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া এসব কথা বলেন।

তারা বলেন, অসৎ ও লুটেরা ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেটের মাধ্যমে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি করে জনগনের জীবনকে দুর্বিসহ করে তুলছে। যেসব পণ্যের মূল্য প্রতিমুহুর্তে বৃদ্ধি হচ্ছে সেসব পণ্যের সংকট নেই এটা ব্যবসায়ীদের মুখ থেকেই বেরিয়ে আসছে। একটা কৃত্রিম সংকট তৈরি করে অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি করে লুটেরারা দেশটাকে অস্থিতিশীল করার ষড়যন্ত্র করছে ষড়যন্ত্রকারী লুটেরাগোষ্টি।

নেতৃদ্বয় বলেন, যারা পণ্য মজুদ ও কৃত্রিম সংকট তৈরির সঙ্গে যুক্ত তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহন করতে না পারলে জনজীবন আরো বেশী দুর্বিসহ হয়ে উঠবে। আর এখনই যদি মূল্য নিয়ন্ত্রণের কোনো ব্যবস্থা গ্রহন করা না হয় তবে, নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের পাগলা ঘোড়া নিয়ন্ত্রনহীন হয়ে পড়বে।

নিত্য প্রয়োজনীয দ্রব্যমূল্যের বর্তমান পরিস্থিতি মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে অভিমত প্রকাশ করে তারা আরো বলেন, সরকারের কেউ কেউ বলছেন কারসাজি করে দ্রব্যমূল্য বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু সরকার এর সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা গ্রহন করছে না। বরং অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে, দ্রব্যমূল্য যে পর্যায়ে পৌঁছে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে অন্যের ওপর দায় চাপানো পরিস্থিতি এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে সরকার।

নেতৃদ্বয় বলে, দ্রব্যমূল্য যে পর্যায়ে পৌঁছেছে তাতে মানুষকে বাঁচাতে হলে পূর্ণ রেশনিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে। পাশাপাশি দ্রব্যমূল্য দ্রুত নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে। যুদ্ধ পরিস্থিতির যে কথা বলা হচ্ছে এটা গ্রহণযোগ্য নয়। দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রন করা যাচ্ছে না, সরকারের সরবরাহ ব্যবস্থায়ও ত্রুটি আছে। দ্রব্যমূল্য নিয়ে উপহাস করা হচ্ছে, অন্যের ওপর দায় চাপানো হচ্ছে। অতীতেও এ ধরনের অজুহাত দেখেছে দেশবাসী। এ অবস্থা চলতে থাকলে শ্রমজীবী মানুষ তো বটেই মধ্যবিত্তও বাঁচতে পারবে না।

Facebook Comments Box
এই ক্যাটাগরির আরও খবর

ফেসবুকে আমরা